পিটিয়ে আহত করে ঘরে তালাবদ্ধর পর এবার  মালামাল লুট, পাল্টাপাল্টি মামলা দায়ের 

0
247
সরিষাবাড়ী (জামালপুর) প্রতিনিধি :
জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে র্বগা জমির ধান নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে সংর্ঘষের ঘটনায় থানায় পাল্টাপাল্টি দায়ের করা হয়েছে। সংঘর্ষে নারী-পুরুষসহ উভয় পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়। বর্গাদারের বাড়িঘরের মালামাল লুটে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার সাতপোয়া ইউনিয়নের চর রৌহা গ্রামের মৃত মকর আলীর ছেলে বিপুল মিয়া। তিনি ৬০ শতাংশ জমি তার প্রতিবেশী মেছের আলীকে বর্গা দেন। চলতি বোরো মৌসুমে জমির ফসল দিতে অস্বীকৃতি জানায় বর্গাচাষী মেছের আলী। এ নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে বিরোধ বাধে। একপর্যায়ে গত শুক্রবার বিকালে বিপুল মিয়া ও তার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ফের বর্গাচাষী মেছের আলীর বাড়ী গিয়ে পাওনা ফসল (ধান) দাবি করেন।
এতে বিপুল মিয়া ও মেছের আলীর মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। পরে উভয় পরিবারের লোকজন সংর্ঘষে জড়িয়ে পড়েন। মেছের আলীর লোকজন বিপুল মিয়া ও তার পরিবারের সদস্যদের পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। ঘটনা জানাজানি হওয়ার ভয়ে মেছের আলীর লোকজন আহতদের একটি ঘরে তালা লাগিয়ে আটকে রেখে। সংবাদ পেয়ে একইদিন সন্ধ্যায় সরিষাবাড়ী থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই ঘর থেকে আহতদের উদ্ধার করে। পরে তাদেরকে সরিষাবাড়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করানো হয়।
আহতরা হলেন, হেলেনা বেগম (৩৫), মরিয়ম বেগম (২৫), বিলকিস বেগম (৪০), শান্ত মিয়া (১৭), বিপুল মিয়া (২২), সুমন মিয়া (২১), রাসেল মিয়া (১৮) ও বর্গাচাষী মেছের আলী (৪৫)। আহতদের মধ্যে গুরুতর  আহত মেছের আলীকে উন্নত চিকিৎসার জন্য জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।
বিপুল মিয়া ও তার পরিবারের সদস্যরা সরিষাবাড়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন থাকার সুযোগে রাতেই মেছের আলীর পরিবারের লোকজন বিপুলের বাড়িঘরের মালামাল লুটে নেয়। পুলিশ গতকাল শনিবার বিকেলে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। পরে শুক্রবার রাতেই বিপুল মিয়া বাদি হয়ে ১৫ জনের বিরুদ্ধে সরিষাবাড়ী থানায় মামলা দায়ের করেন। পরের দিন অর্থাৎ গতকাল শনিবার বিকেলে অপরপক্ষ পাল্টা আরেকটি মামলা দায়ের করে।
এ ব্যাপারে বিপুল মিয়া জানান, তিনি তার  ৬০ শতক জমি মেছের আলীকে বর্গা দিয়েছেন। চলতি মৌসুমের ধান চাইতে গেলে তারা মারধর করে তাদেরকে ঘরে তালা দিয়ে আটকে রাখে। পরে পুলিশ গিয়ে তাদেরকে উদ্ধার করে। সে ও তার পরিবারের লোকজন হাসপাতালে ভর্তি থাকার সুযোগে রাতেই মেছের আলীর লোকজন বাড়িঘরের মালামাল লুটে নিয়েছে।  পরে শুক্রবার রাতে অভিযুক্তদের আসামী করে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন বলেও তিনি জানান।
সরিষাবাড়ী থানার পরির্দশক (তদন্ত) আব্দুল মজিদ সাংবাদিকদের জানান, বর্গাদার ও বর্গাচাষীর লোকজনের সাথে ধান নিয়ে সংর্ঘষের ঘটনায় পাল্টাপাল্টি দুটি মামলা হয়েছে। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও তিনি  জানান।