মায়ানমার সীমান্তে বড় মধক বাজার ভয়াবহ অগ্নীকান্ড : ২০ দোকান পুরে ছাই

0
283

মংবোওয়াংচিং মারমা ( অনুপম) থানচি (বান্দরবান) থেকে

বান্দরবানে থানচি উপজেলা মায়ানমার সীমান্তে রেমাক্রী ইউনিয়নে বড় মধক বাজারে এক ভয়াবহ অগ্নীকান্ডে বাজারেরর শতাধকি ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের দোকান থেকে ২০ টি দোকান পুরে ছাই। স্থানীয়রা প্রাথমকিভাবে প্রায় ৬০ হতে ৭০ লক্ষাধিক মালামাল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে ধারনা করা হচ্ছে।
স্থানীয়রা প্রায় ১০ টি দোকানেরর ছাঁদে ঢেউ টিন ভেঙ্গে ফেলায় বাকী দোকান আগুন না ছড়ানো কারনে বেঁচে যায় প্রায় ৭০ টি দোকান ঘর।
বৃহস্পতিবার ৫ নভেম্বর সকাল সাড়ে ৬ টা ম্রাক্য মারমা ৫০ এর ফারমন্সেী ও যৌথ মুদি দোকানের পারিবারিক রান্না ঘরেরর রান্না করার সময় গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরনে আগুনে সূত্রপাঠ ঘটেছে বলে স্থানীয়রা জানান। এদিকে থানচি উপজলো সদর হতে প্রায় ৮০ কিলোমিটার দক্ষিনে পূর্বে মায়ানমার সীমান্তে দুর্গমতা ও সড়ক যোগাযোগ বিছিন্নতা থাকায় ফাইয়ার সার্ভিস ডিফেন্স স্টেশন ও স্থানীয় উপজেলা প্রশাসন আগুন নিয়ন্ত্রনের সহযোগীতা করার সম্ভব হয়ে উঠেনি।
বড় মধক বাজারে বাসিনন্দা ও ব্যবসায়ী উবামং মারমা বলছেনন বড় মধক বাজারটি স্বাধীনতা পর পর স্থাপিত হলেও বাজারেরর পরচিালনা কমিটি আগুন নিয়ন্ত্রন ও পারিবারিক প্রয়োজনে ঘরের রান্না করার নির্ধারিত সময় নিয়ম নিতি বেঁধে দেয়ার স্বাধীনতা পরবর্তীতে কোন প্রকার অগ্নিকান্ড ঘটনা ঘটেনি।
রেমাক্রী ইউনয়িনে চেয়ারম্যান মুইশথৈুই মারমা বলেন, আধুনিকতা ছোয়া পেতে গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবহারের কারনে এ দুর্ঘটনা হয়েছে বলে তিনি মত দিয়েছেন। স্থানীয় বড় মধক বিজিবি ক্যাম্পের সহযোগীতায় বিজিবি ৩৮ ব্যাটালয়িানের অধিনায়ক লে: কর্নেল মোহাম্মদ সানবীর হাসান মজুমদার সীমান্তে বড় মধক বাজার অগ্নিকান্ডে ঘটনা সত্যতা নিশ্চিত করেরেছেন। তিনি আজ কাল মধ্যে পরিদর্শন করবেন এবং ক্ষতিগ্রস্তদের সহযোগীতা দিবেন বলে সাংবাদিকদের জানান।