বাংলাদেশে করোনায় মৃত্যু ছাড়ালো ১০০০০

0
116

দিডেইলিনিউসান রিপোর্টঃ

বাংলাদেশের স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সূত্র মতে বৃহস্পতিবার সকাল ৮ টা থেকে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন আরও ৯৪ জন এবং এই পর্যন্ত দেশে মৃত্যু সংখ্যা ছাড়িয়েছে ১০,০০০।

এ নিয়ে করোনাভাইরাসের কারণে বাংলাদেশে সর্বমোট মারা গেলেন ১০ হাজার ৮১ জন মানুষ।

বাংলাদেশে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পর এটা ছিল এ যাবৎকালের মধ্যে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সংখ্যক মানুষের মৃত্যু। বুধবার বাংলাদেশে কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়ে রেকর্ড ৯৬ জন মানুষ মারা গিয়েছিলেন।

এছাড়া, এই ২৪ ঘণ্টা সময়ে নতুন করে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন এমন ৪,১৯২ জন শনাক্ত হয়েছেন। ফলে দেশটিতে মোট শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭ লাখ ৭ হাজার ৩৬২ জন।

সরকারি পরিসংখ্যানে দেখা যাচ্ছে যে নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত মানুষ শনাক্তের হার ২১ শতাংশে পৌঁছেছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় ২৫৭টি পরীক্ষাগারে মোট ১৯ হাজার ৯৫৯ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। অর্থাৎ গতকালের তুলনায় বাংলাদেশে নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা বেশ খানিকটা কমেছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৪ দশমিক ৪৩ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার এক দশমিক ৪৩ শতাংশ।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিসংখ্যানে দেখা যাচ্ছে, ফ্রেব্রুয়ারি মাসের ১৫ তারিখ থেকে মার্চে মাসের ১৪ তারিখ পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ২৭১ জন মানুষ মারা গেছে।

কিন্তু পরবর্তী এক মাসে, অর্থাৎ মার্চ মাসের ১৫ তারিখ থেকে এপ্রিল মাসের ১৪ তারিখ পর্যন্ত এক হাজার চারশ বিয়াল্লিশ জন মানুষ মারা গেছেন। অর্থাৎ পূর্ববর্তী মাসের তুলনায় মৃত্যু বেড়েছে পাঁচ গুন বেশি।

গত ২৪ ঘণ্টায় যারা মারা গেছেন, তাদের বড় অংশ অর্থাৎ ৫২ জনের বয়স ৬০ বছরের বেশি। এদের মধ্যে পুরুষ ৬৪ জন, আর নারী ৩০জন ছিলেন।

মারা যাওয়া বাকিদের মধ্যে ৫১-৬০ বছরের মধ্যে ২৫ জন, ৪১-৫০ বছরের মধ্যে ১৪ জন এবং ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে তিন জন ছিলেন। যারা মারা গেছেন তাদের মধ্যে ৯০ জনই মারা গেছেন হাসপাতালে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সর্বশেষ তথ্যে দেখা যাচ্ছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৫,৯১৫ জন।

সারা দেশে এই মূহুর্তে ৮২৫টি আইসিইউ বেড রয়েছে, যাতে ৬৫২জন কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগী ভর্তি আছেন।