পিরোজপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় মন্ত্রী পরিষদে চূড়ান্ত অনুমোদন লাভ করায় আনন্দ শোভাযাত্রা

0
231

পিরোজপুর থেকে হাসান মামুন:

দক্ষিনের জেলা পিরোজপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় মন্ত্রী পরিষদে নীতিগতভাবে চূড়ান্ত অনুমোদন লাভ করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ.ম রেজাউল করিম এমপিকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে পিরোজপুরে বিশাল আনন্দ শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার ও বুধবারে পিরোজপুরের সাধারণ জনগণের ব্যানারে অনুষ্ঠিত মোটর শোভাযাত্রায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে প্লাকার্ড বহন করা হয়।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী অ্যাডভোকেট শ.ম রেজাউল করিম এমপি মঙ্গলবার ঢাকা থেকে পিরোজপুরে এসে শহরের মুজিব চত্বর থেকে হাত নাড়িয়ে বিশাল গাড়ী ও মোটর সাইকেল বহর নিয়ে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ন সড়ক প্রদক্ষিন করেন। এসময় বহরে থাকা নেতা কর্মীরা বর্তমান সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের শ্লোগান দেন এবং পিরোজপুরে বিশ^বিদ্যালয়ের চুড়ান্ত অনুমোদন হওয়ায় প্রধানমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে শ্লোগান দিতে থাকে। এসময় নেতা কর্মীরা মন্ত্রীকে বেকুটিয়া ফেরিঘাটেসহ বিভিন্ন স্থানে ফুলেল শুভেচ্ছা ও উষ্ণ অভ্যার্থনা জানায়।

এ বিষয়ে পিরোজপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য এবং মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ.ম রেজাউল করিম বলেন, মন্ত্রীসভায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় অনুমোদন লাভ করায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছি।

মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, শেখ হাসিনার বিকল্প কোনো নেতৃত্ব বাংলাদেশে নেই, মুক্তিযুদ্ধের পরে সকল শক্তিকে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ হয়ে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা নির্মাণ করতে হবে। তিনি পিরোজপুরবাসীর প থেকে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা জানান। তিনি আরো বলেন, এলাকাবাসীর উন্নয়নের জন্য যে প্রজেক্ট পাস করেছে তার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে দোয়া করুন।

করোনার মধ্যে শুধু পিরোজপুর নয় সারা বাংলাদেশের উন্নয়নের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন, দেশে না খেতে পারা মানুষের আহারের ব্যবস্থা, চিকিৎসা বঞ্চিত জনগণের চিকিৎসা ব্যবস্থা করে যাচ্ছেন। অতীতে দেশে যে দুরবস্থা ছিল এখন তা আর নেই। জেলার যেসব এলাকায় উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি সে সব এলাকাকে আমি গুরুত্ব দিচ্ছি এ সময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, ছাত্রলীগসহ হাজার হাজার নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এসময় বক্তারা বলেন, পিরোজপুর জেলার ইতিহাসে এ পর্যন্ত যত কাজ হয়েছে তার মধ্যে এটি একটি সর্বশ্রেষ্ঠ কাজ। শেরেবাংলা এ কে ফজলুল হক এ এলাকায় শিক্ষা বিস্তারে যে অবদান রেখেছেন সে অবদানের সাথে পিরোজপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য এবং মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ.ম রেজাউল করিমের নামটি যুক্ত হলো। আমরা ধন্যবাদ জানাই মন্ত্রী শ.ম রেজাউল করিমকে।

উল্লেখ্য, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর নামে পিরোজপুরে একটি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের জন্য পিরোজপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য এবং মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ.ম রেজাউল করিম প্রধানমন্ত্রী বরাবরে ২০১৯ সালে একটি ডিও লেটার দেন।

বিশ্ববিদ্যালয়টি স্থাপনের নীতিগত অনুমোদন দিতে ২০১৯ সালের ২৭ জুলাই মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের কাছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে এর যৌক্তিকতা সম্পর্কে জানতে চাওয়া হয়। এরই পরিপ্রেক্ষতে একই বছরের ১৫ সেপ্টেম্বর শিক্ষা মন্ত্রণালয় পিরোজপুর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করা যেতে পারে বলে সায় দেয়। এ লক্ষ্যে ‘পিরোজপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় আইন, ২০২০’ এর খসড়া প্রণয়ন করেছে সরকার।

গত সোমবার (১১ জানুয়ারী) এটি মন্ত্রীসভায় নীতিগতভাবে অনুমোদন হয়। বর্তমানে দেশে ৪৬টি সরকারি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। এটি প্রতিষ্ঠিত হলে মোট ৪৭টি সরকারি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় হবে।