পিরোজপুরে আসামী ধরতে গিয়ে হামলায় ৫ পুলিশ সদস্য আহত

0
294

পিরোজপুর থেকে হাসান মামুন:

পিরোজপুরে আসামী ধরতে গিয়ে আসামীর হামলায় ৫ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। ওই হামলার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে ৮ জনকে আটক করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে রোববার রাত সাড়ে ১২টার দিকে পৌরসভার ২নং ওয়াডের্র কুমারখালী এলাকায়।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) মোল্লা মো. আজাদ পুলিশের ওপর ওই হামলার ঘটনা সংবাদ কর্মীদেরকে জানান, সম্প্রতি সিভিল সার্জন অফিসের কোজ সার্কিট ক্যামেরা (সিসি ক্যামেরা) চুরির ঘটনার ঘটে। রাত ২টার দিকে পুলিশ ওই চুরির মামলার আসামী মেহিদী হাসান সিকদারকে (২৭) ওরফে হাসান সিকদারকে গ্রেফতার করতে অত্র এলাকায় যায়। এ সময় ওই এলাকার ১০/১২ জনের সন্ত্রাসী দল পুলিশের ওপর হামলা চালায়।

এসময় অভিযানে থাকা এসআই (উপ-পরিদর্শক) সৈকত হাসান সানি, এসআই (উপ-পরিদর্শক) মাহমুদুল হাসান, এএসআই (সহ উপ-পরিদর্শক) সাইফুল ইসলাম, এএসআই (সহ উপ-পরিদর্শক) খায়রুল হাসান ও পুলিশ সদস্য মারুফ হোসেনসহ পাঁচ জন তাদের হাতে আহত ও জখম প্রাপ্ত হন।

হামলায় গুরুতর আহত পুলিশের এএসআই মো. খায়রুল হাসান, পুলিশ সদস্য মারুফ হোসেন এবং এসময় পৌরসভার বাসিন্দা আহত শাওন দাস জেলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। বাকীদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে থানা অফিসার ইন চার্জ মো. নুরুল ইসলাম বাদলের জানান, এ ঘটনায় ৮ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এরা হল-মেহেদী হাসান সিকদার ওরফে হাসান সিকদার (২৭) পিতা আনোয়ার হোসেন সিকদার, সোহেল সিকদার (৪০) পিতা সাহা সিকদার, সৌরভ (২০) পিতা মারুফ খান, রেজাউল সেখ (২৫) পিতা আবুল বাসার সেখ, শুভ (২০) পিতা সোহেল সিকদার, জুয়েল কাজী (২৫) পিতা আবুয়াল কাজী। এসব আসামীদের সকলের বাড়ি পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের কুমারখালী এলাকার বাসিন্দা। এছাড়া আসামী ওসমান (৩০) পৌরসভার নরখালী এবং শাওন দাস (২২) পিতা শিবু দাস, শেখ পাড়া, পৌরসভার বাসিন্দা।

এ ঘটনায় সোমবার এসআই (উপ-পরিদর্শক) মাহমুদুল হাসান বাদী হয়ে ১৬ জনকে এজাহার ভূক্ত এবং ৩৫ জন অজ্ঞাতনামা আসামী করে মামলা রুজু করেছেন।