পিআইবি-এটুআই গণমাধ্যম পুরস্কার-২০২১ গ্রহণ করলেন ৭ সাংবাদিক

0
290

ডেইলিনিউসান ডেস্কঃ

প্রেস ইনস্টিটিউট বাংলাদেশ (পিআইবি) এবং এটুআই এর যৌথ আয়োজনে রোববার সকালে পিআইবি’র অডিটরিয়ামে বিভিন্ন গণমাধ্যমে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিষয়ক রিপোর্টিংয়ের জন্য ৭ ক্যাটাগরিতে ৭ সাংবাদিককে পিআইবি-এটুআই গণমাধ্যম পুরস্কার-২০২১ প্রদান করা হয়েছে।

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহ্মুদ, এমপি প্রধান অতিথি হিসেবে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. মুরাদ হাসান এমপি, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্মেদ পলক এমপি, তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মকবুল হোসেন, এটুআই-এর প্রকল্প পরিচালক ড. মো. আব্দুল মান্নান পিএএ।

অনুষ্ঠানে সভাপ্রধানের দায়িত্ব পালন করেন পিআইবি’র মহাপরিচালক কবি জাফর ওয়াজেদ, সংবাদ বিজ্ঞপ্তিত।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, করেনাকালে অনলাইন আর টেলিভিশনের মাধ্যমে পাঠদান চলছে। এই পরিস্থিতি কতোদিন চলবে তা জানা নেই।

তাই আমরা সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি, যতদ্রুত সম্ভব বিটিভির একটি শিক্ষা চ্যানেল চালু করবো। তিনি বলেন, সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে তথ্য প্রযুক্তির প্রভাব অনেক বেড়েছে। সবার আগে সর্বশেষ সংবাদ পরিবেশনের ক্ষেত্রে গণমাধ্যমগুলোর মধ্যে সুস্থ প্রতিযোগীতা রয়েছে। কিন্তু সবার আগে সর্বশেষ সংবাদ পরিবেশন করতে গিয়ে অনেক সময় ভুল হয়।

এটি যেন না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। মন্ত্রী আরো বলেন, সাংবাদিকদের যদি ডিজিটাল লিটারেসি দেয়া যায় তাহলে তারা অনেক লাভবান হবেন।

তাই আমরা প্রথম পর্যায়ে ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী এবং ময়মনসিংহে ডিজিটাল লিটারেসি নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশিক্ষনের আয়োজন করবো। পরবর্তীতে বিভিন্ন বিভাগীয় শহরে এই প্রশিক্ষনের আয়োজন করা হবে। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. মুরাদ হাসান বলেন, গণমাধ্যম সরকারের ভুলত্রুটি তুলে ধরবে পাশাপাশি সরকারের উন্নয়নের সংবাদ জনগনের কাছে পৌঁছে দিবে।

তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী প্রনোদনা সহায়তা সাংবাদিকরা পাচ্ছেন। বাংলাদেশ সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের মাধ্যমে সাংবাদিকদের এই আর্থিক সহায়তা দেয়া হচ্ছে। বিশেষ অতিথি তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্মেদ পলক বলেন, ২০২১ সাল আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ বছর। এই বছর ডিজিটাল বাংলাদেশ রূপকল্প পৌঁছানোর বছর।

তিনি বলেন, করনোকালে প্রযুক্তি ব্যবহার করে সাড়ে চার কোটি শিক্ষার্থীকে পাঠদান করা হচ্ছে। গত ১৫ মাসে ৪০ লাখ মানুষকে টেলিমেডিসিন সেবা দেয়া হয়েছে। একইসঙ্গে ৪০ লাখ ই ফাইল সম্পন্ন করা হযেছে।

১০১৬ সাল থেকে এই পর্যন্ত ১ কোটি ৯১ লাখ ই ফাইল সম্পন্ন হয়েছে। এইসব কর্মযজ্ঞ সম্পন্ন হয়েছে ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নের মাধ্যমে আর মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজিব ওয়াজেদ জয়ের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায়।

২০২১ সালের পুরস্কার বিজয়ীরা হচ্ছেন জাতীয় সংবাদপত্র (বাংলা) ক্যাটাগরিতে দৈনিক জবাবদিহি এর প্রতিবেদক জনাব সাদেকুর রহমান, জাতীয় সংবাদপত্র (ইংরেজি) ক্যাটাগরিতে ফিনানসিয়াল এক্সপ্রেস-এর প্রতিবেদক জনাব জসীম উদ্দীন হারুন, টেলিভিশন ক্যাটাগরিতে বাংলা ভিশন এর প্রতিবেদক জনাব আল মামুন, আঞ্চলিক সংবাদপত্র ক্যাটাগরিতে দৈনিক সিলেট মিরর-এর প্রতিবেদক জনাব শুয়াইবুল ইসলাম, বেতার ক্যাটাগরিতে বাংলাদেশ বেতার-এর জনাব মো. মোস্তাফিজুর রহমান, অনলাইন সংবাদপত্র ক্যাটাগরিতে বাংলা নিউজ২৪-এর প্রতিবেদক জনাব সোলায়মান হাজারী এবং নারী সাংবাদিক ক্যাটাগরিতে চ্যানেল আই-এর আঞ্জুমান লায়লা। অনুষ্ঠানে পুরস্কার বিজয়ীদের প্রত্যেককে ৭৫ হাজার টাকা, ক্রেস্ট ও সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়।

পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন তথ্য মন্ত্রণালয়, পিআইবি ও এটুআই এর কর্মকর্তাবৃন্দ এবং বিভিন্ন গণমাধ্যম ব্যক্তিবর্গ।