নিমগ্ন দুপুর’র কবিতা

0
142

স্বীকারোক্তি

 

ইদানীং আর কবিতা লেখা হচ্ছেনা
তোমাকে দেখার পর শব্দের চোখ বারবার চোরা চাহনীতে তোমাকেই লিখছে;
অনুভূতির ক্রীড়ানক হয়ে মন শুধু তোমাকেই ভাবছে !

যদিও জানি একপেশে এই ক্ষরণের কোন মলম নেই নেই তোমাকে জানানোর কোন আকুতি!
জানি হয়তো তুমি পর্যন্ত পৌঁছুবেনা আমার এই চিৎকার;
তাই নির্বাক দূরত্বে অস্ফুট স্বরে চাপা পড়ে থাকবে ভালোবাসা
বলতে না পারার অপরাধে একাকীত্বের ফাঁসিতে আমরণ ঝুলে থাকবে হৃদয়,
হয়তো তোমাকে ছোঁয়ার ইচ্ছে এই জীবনে অপূর্ণই রয়ে যাবে!

তাতে কি?
বোকা এই মানুষটা কাঁদবে জেনেও তোমাকেই চোখে সাজিয়ে রেখেছে
নিরবিচ্ছিন্ন নিঃসঙ্গতায় বারবার কেঁপে উঠে নিজের ভেতর আরো বেশি একা হয়ে পড়েছে!

জেনো ছেলে, কবি মানেই পাপ
কবরের বুকে ফোটা নিঃসঙ্গ কামিনী ফুলের কষ্ট; নিয়তির শ্রেষ্ঠ অপরাধ!
এরপর এই আসামীকে আর কি কোন দুঃখ ভয় দেখাতে পারে?