তীব্র শীতে মরছে মৌমাছি, লোকসানের মুখে মৌচাষিরা

5
292


সরিষাবাড়ী (জামালপুর) প্রতিনিধি
জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলায় মাঠে মাঠে এখন হলুদের সমারোহ। সরিষাক্ষেতগুলো ফুলে ফুলে ভরপুর। প্রকৃতি সেজেছে হলুদ বর্ণে। চারপাশে এখন সরিষা ফুলের গন্ধ। এরি মাঝে জেঁকে বসেছে তীব্র শীত। বিভিন্ন অঞ্চল থেকে মধু সংগ্রহ করতে আসা মৌচাষীরা পড়েছে বিপাকে। ঘন কুয়াশা ও কনকনে শীতে প্রতিদিন মরছে হাজার হাজার মৌমাছি। এতে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে মধু সংগ্রহ করতে আসা মৌচাষীরা।
সরিষাাড়ী উপজেলায় সরিষাভান্ডার খ্যাত হওয়ায় মৌচাষীরা দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে বেশি মুনাফার লাভে মধু সংগ্রহ করতে এই অঞ্চলে আসেন। মৌচাষীরা সরিষাক্ষেতের পাশে শত শত মৌ বাক্স বসিয়ে মধু সংগ্রহ করেন। কিন্তু গত এক সপ্তাহ অধিক সময় ধরে ঘন কুয়াশা ও তীব্র শীতের কারণে মধু সংগ্রহ করতে ব্যাহত হচ্ছে মৌচাষীরা।

এদিকে শৈত্যপ্রবাহ, ঘন কুয়াশা, ও কনকনে তীব্র শীতের কারণে বাক্স থেকে বের হচ্ছে না মৌমাছিরা। চরম ভাবে ব্যাহত হচ্ছে মধু সংগ্রহ। যে সব মৌমাছি বাক্স থেকে বের হচ্ছে তীব্র শীতের কারণে সেগুলো মারাও যাচ্ছে। বাক্স থেকে বের হয়ে মৌমাছিগুলো ঘন কুয়াশা ও শীতের কারণে পূনরায় বাক্সে ফিরতে পারছে না। বিভিন্ন পদ্ধতি ব্যবহার করেও রক্ষা করা যাচ্ছে না মৌমাছিগুলো।

উপজেলা কৃষি অফিস সুত্রে জানা যায়, চলতি মৌসুমে এখানে প্রায় ৪ হাজার হেক্টর জমিতে সরিষাচাষ হয়েছে। এসব জমির পাশে প্রায় ৭ শতাধিক মৌমাছির বাক্স বসিয়ে মধু সংগ্রহ করছে মৌচাষীরা।

সরেজমিন ঘুরে কথা হয় মৌচাষীদের সাথে। তারা জানায় প্রতিদিন কয়েকশ করে মৌমাছি মারা যাচ্ছে। মাদারগঞ্জ থেকে আসা মৌচাষী দুলাল মিয়া, ঢাকা গাজিপুেরের মৌচাষী সজিব ও আরিফুল ইসলাম বলেন, কর্মক্ষম মাছিগুলো মরলে আমাদের বেশি ক্ষতি। খারাপ আবহাওয়ার কারণে মৌমাছির বিভিন্ন রোগ ধরছে। যেমন ঠান্ডা লাগা, পাতলা পায়খানা, ঘন কুয়াশার কারণে উড়তে না পারা। এসব কারণে আমরা চরম ক্ষতির মধ্যে পড়েছি। লাভের আশা তো দুরের কথা মুলধন উঠানোই কষ্টসাধ্য হয়ে পড়বে।
সাতক্ষিরা থেকে আসা মৌচাষী কামাল হোসেন বলেন, এখানে আগাম সরিষা আবাদ হয় শুনে অনেক আশা নিয়ে আসছিলাম। ভেবেছিলাম মৌমাছিগুলো বেশি মধু সংগ্রহ করবে। প্রচুর মধু উৎপাদন করতে পারবো। কিন্তু তাপমাত্রা কমে যাওয়ার কারণে মৌ কলোনিগুলো ধ্বংসের আশস্কা দেখা দিযেছে। তাই সরকারি সহায়তা কামনা করি।

এ ব্যাপারে উপজেলা সিনিয়র কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, সরিষাবাড়ী আগাম সরিষা চাষ হয়ে থাকে। একারনে দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে মৌ চাষীরা মধু সংগ্রহ করতে আসেন। সরিষার ফুল আসার আগেই ঘন কুয়াশা ও তীব্র শীত পড়ে গেছে। তাই হয়তো মৌমাছি মধু আহরণ করতে পারচ্ছেনা। এদিকে সরিষাচাষীরা ফুল আসার সাথে সাথেই বিভিন্ন কীটনাশক প্রয়োগ করছে। এতেও মধু সংগ্রহ করতে ব্যহত হচ্ছে। আমরা কৃষি অফিস থেকে কৃষকদের বুঝাতে চেষ্ঠা করছি যে ফুল আসলে কীটনাশক ক্ষেতে প্রয়োগ করলে সরিষার ফলন ভালো হয় না এবং মধু সংগ্রহ করতে আসা মৌমাছিও মারা যায়।