তাপস হালদার’ র কবিতা।

0
125

প্রাক্তন এবং আমি
~

সুধী সময় শুভানুরাগী______
আমি আপনাদের মাঝে উপস্থিত হয়েছি কবিতা পাঠের পক্ষ নিয়ে।আমার কবিতার ডানায় রয়েছে প্রকৃতিতে পরাণ জাগা প্রাক্তনের যতো প্রজ্ঞা রূপ।

যে রূপে ভেসে যায় পৃথিবী।
নিঃশব্দে পাশকাটিয়ে চলে যতে চায় জৈবিক জীবনের জন্ম নিবেদিত জরায়ু।

ট্যাপাটোপা গোলগাল চাঁদটা
ক্ষুধায় ক্ষুধায় গ্যাস ঝালাই হয়ে উবু হয়ে পড়েথাকে ভাঙা আকাশটার পিঠের উপর।

বা তা সে বা তা সে
পেটের মধ্যে চলে যায় কালো মেঘ।
চারিদিকে উপচেপড়ে বর্ণিল বর্ষা।

প্রতিফলিত আ লো তে
আমি আমার আপনের মুখে পেন্সিলের ঠোঁটডলে
সাজিয়ে তুলি খোরাকি পসরার তৃষ্ণার্ত খসরা।

বুঝতে পারছি;
আমার কবিতা আপনাদের ভালো লাগছেনা।
পেছনের অাসনগুলো ধীরে ধীরে পাতলা হয়ে যাচ্ছে।

সামনের আসনে শুধু এজনই রয়েছে।
ওঁনার বোধ হয় বাঁধনের বোধন নেমেছে কপালে।
নতুবা আঙুলে ঝি ধরেছে।

তবুও আমি কিছুতেই থামবো না।
কারণ আমার লজ্জ্বা নেই!
তোমার মতো আমার ধর্ম নেই।