চট্টগ্রাম বন্দরে পণ্য খালাসে মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইট জালিয়াতি: ৫ জন গ্রেপ্তার চট্টগ্রাম অফিস:

0
254


চট্টগ্রাম বন্দরে ঘোষণা বর্হিভূত আমদানীকৃত পণ্য খালাসে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ভুয়া ওয়েবসাইট খুলে জালিয়াতির ঘটনায় জড়িত এক সিএন্ডএফ মালিকসহ ৫ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

তারা হলেন- সিঅ্যান্ডএফ প্রতিষ্ঠান খান এন্টারপ্রাইজের মালিক গোলাম মওলা খান, তার ছোট ভাই গোলাম রসুল খান, জাল ওয়েবসাইট ডেভেলপার আবুল খায়ের পারভেজ, মো. আতিকুর রহমান রাসেল ও রাহাত হায়দার চৌধুরী রানা।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সিআইডির চট্টগ্রাম অঞ্চলের বিশেষ পুলিশ সুপার মুহাম্মদ শাহনেওয়াজ খালেদ বলেন, বন্দরে মিথ্যা ঘোষণায় আমদানি করা পণ্য খালাসের জন্য বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের জাল ওয়েবসাইট খুলে জালিয়াতির অভিযোগে দায়ের হওয়া মামলায় মোট পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গত কয়েকদিন এ নিয়ে টানা অভিযানে তাদের গ্রেপ্তার করা হয় এর মধ্যে তিনজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।

কাস্টম হাউস সূত্রে জানা গেছে, মিথ্যা ঘোষণায় আমদানি করা পণ্য খালাসের জন্য বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের জাল ওয়েবসাইট খুলে জালিয়াতির অভিযোগে গত ২৯ অক্টোবর ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে বন্দর থানায় বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেন চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউসের সহকারী শুল্ক কর্মকর্তা সুজয় দেবনাথ। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ২২ (২) ও ২৩ (২) এবং দণ্ডবিধির ৪২০, ৪৬৮ ও ৪৭১ ধারায় মামলাটি দায়ের হয়। মামলাটি সিআইডি তদন্ত করছে।

চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের সহকারী কমিশনার নূর-এ হাসনা সানজিদা অনসূয়া জানান, আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান মেসার্স সিয়াম এন্টারপ্রাইজ প্রথমত মিথ্যা ঘোষণায় পণ্য আমদানি করে দ্য কাস্টমস অ্যাক্ট, ১৯৬৯ এর ধারা ৩২ এবং দ্য ইমপোর্ট অ্যান্ড এক্সপোর্ট (কনট্রোল) অ্যাক্ট, ১৯৫০ এর সেকশন ৩ (১) লংঘন করেছেন। এরপর বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিপি জালিয়াতি ও ভুয়া ওয়েবসাইট খুলে তাতে ভুয়া সিপি আপলোড করে কাস্টমস বিভাগকে বিভ্রান্ত ও প্রতারিত করার মাধ্যমে ফৌজদারি অপরাধ করেছেন।