কথা রাখলেন জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনা

0
280

গোপালগঞ্জে ভুমিহীনদের জন্য নির্মিত ৭৮৭ টি গৃহ হস্তান্তর প্রক্রিয়ার উদ্বোধন

গোপালগঞ্জ থেকে মিজানুর রহমান মানিক:

কথা রাখলেন জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা, সমাজের অবহেলিত, সুবিধাবঞ্চিত ও পিছিয়ে পড়া মানুষের নিরাপদ আশ্রয়স্থল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সমগ্র বাংলাদেশে ৬৬ হাজার ১’শত ৮৯টি গৃহ ও ভূমিহীন মানুষের জন্য ভূমি ও আবাসনের ব্যবস্থা করলেন তিনি, সারা বিশ্বের কাছে এটি একটি দৃষ্টান্ত হয়ে থাকলো।

শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার সময়ে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সারাদেশের প্রতিটি উপজেলাতে আনুষ্ঠানিকভাবে ভুমিহীনদেরকে জমিসহ গৃহের কবুলিয়াত তাদের হাতে তুলে দেয়ার মাধ্যমে মুজিব বর্ষে ভূমি ও গৃহহীনদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর উপহার প্রদানের কাজ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে অন্যান্য জেলার ন্যায় প্রধানমন্ত্রীর উপহার ও তাঁর সরকারের দেওয়া প্রতিশ্রুতি হিসেবে গোপালগঞ্জের ভুমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য ৭’শ ৮৭ টি গৃহের হস্তান্তর প্রক্রিয়া উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

উল্লেখ্য, গোপালগঞ্জ সদরে ৪’শ ৮০ টি, কাশিয়ানীতে ২০০ টি, মুকসুদপুরে ৫০ টি, কোটালীপাড়ায় ৩০ টি ও টুঙ্গিপাড়ায় ২৭ টি গৃহ মিলে মোট ৭৮৭ টি গৃহ নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। মধুমতি নদীতীরে পাউবো ভুমিতে এবং বিভিন্ন ইউনিয়নে সরকারী খাস খতিয়ানের ভুমিতে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ প্রকল্পের এই গৃহ নির্মাণ কাজ বাস্তবায়িত হয়েছে। দুই শতাংশ সরকারী জমির উপর এক লাখ ৭১ হাজার টাকা ব্যয়ে দুই কক্ষ বিশিষ্ট ওয়ালসেড ঘর ও পাকা ল্যাট্রিনসহ রান্নাঘর নির্মান করা হয়েছে।

গোপালগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদ চত্বরে সদর উপজেলার গৃহ ও ভূমিহীনদের মাঝে জমি ও গৃহের কবুলিয়ত প্রদান উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর ভিডিও কনফারেন্সের সাথে যোগদান অনুষ্ঠানে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোছা. শাম্মী আক্তার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) মো. আব্দুল্লাহ আল মাসুদ, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ লুৎফার রহমান বাচ্চু, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ রাশেদুর রহমান, পৌর মেয়র কাজী লিয়াকত আলী, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. মনোয়ার হোসেন সহ স্থানীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, জনপ্রতিনিধিগণ, উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন সেক্টরের কর্মকর্তা / কর্মচারী এবং প্রিন্টিং ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।