ইতিহাস-ঐতিহ্য ধ্বংসের ষড়যন্ত্রে জামাত-শিবির

0
294

ডেইলিনিউসান নিউজ
ইসলামের অপব্যাখ্যা দিয়ে দেশের সাধারণ জনগণের ধর্মানুভূতিকে ব্ল্যাকমেইল করে স্বাধীনতাবিরোধী রাজাকার ও রাজাকারের বংশধররা নতুন করে ষড়যন্ত্রে নেমেছে। মহান মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস-ঐতিহ্যের ধারক-বাহক ভাস্কর্যকে প্রতীমার সাথে তুলনা করে একদিকে দেশে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি করতে চায়, অন্যদিকে স্বাধীন-সার্বভৌত্বের ইতিহাস-ঐতিহ্যকে ধ্বংস করতে নানা রকম ফন্দি করছে।

কনিবার (২৮ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টায় জাতীয় প্রেস ক্লাব আব্দুস সালাম মিলনায়তনে “ছদ্মবেশে জামাত-শিবিরের অব্যাহত ষড়যন্ত্র ও আমাদের করণীয়” শীর্ষক আলোচনা সভার আয়োজন করে বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামা লীগ।

প্রধান অতিথির বক্তেব্য তথ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য ও জাতীয় প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি মুহম্মদ শফিকুর রহমান এমপি বলেন, ইসলামের অপব্যাখ্যাকারীদের বিরুদ্ধে, তাদের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে দেশের প্রকৃত আলেম ওলামাদের ঘুরে দাঁড়াতে হবে। ভাস্কর্যকে ইস্যু করে স্বাধীনতা বিরোধীরা মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস-ঐতিহ্যকে ধ্বংস করার ষড়যন্ত্র করছে। আর এই ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করতে হলে দেশের জনগণসহ প্রকৃত ইসলামী মূল্যবোধের আলেম সমাজকে রুখে দাঁড়াতে হবে।

তিঁনি আরও বলেন, বিশ্বের মুসলিম প্রধান দেশগুলোতে যেখানে ঐতিহাসিক নিদর্শন হিসেবে ভাস্কর্য স্থাপন করেছে, সেখানে স্বাধীনতাবিরোধী রাজাকার ও রাজাকারের বংশধর ভাস্কর্য নিয়ে অপব্যাখ্যা দিয়ে মুসলমান সম্প্রদায়ের আবেগ-অনুভুতিকে ব্লাক মেইল করে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করার ষড়যন্ত্র করছে যা কখনোই সফল হবে না। এদের মানুষ তাদের প্রতিহত করবে।

বাংলাদেশ অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট ফোরামের (বোয়াফ) সভাপতি কবীর চৌধুরী তন্ময় বলেন, স্বাধীনতা বিরোধী রাজাকার মুমিনুল হকের মতামতের উপর ইসলাম নির্ভর করে না। ইসলাম মানবতার পক্ষে, ইতিহাস-ঐতিহ্যের পক্ষে, ইসলাম শান্তির পক্ষে যা পবিত্র কোরআন অনুমোদন করে। আর কোরআনের অপব্যাখ্যা করে এবং নবীকে (সা.) অবমাননা করে মামুনুল হক মুলত রাজাকার ও রাজাকার বংশধরদের হাত তালী-বাহবা পেলেও প্রকৃত আলেম ওলামা এদের প্রতিহত করবে।

বাংলাদেশ আওয়ামী ওলামা লীগের সভাপতি হাফেজ মাওলানা সুলাইমানের সভাপতিত্বে, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক শাইখ মাওলানা আলমগীর হোসাইনের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন মো. রেজাউল করিম এমপি, ওলামা লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মুফতি আল্লামা খলিলুর রহমান জিহাদী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. আমিনুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা রবিউল আলম সিদ্দিকী, হাফেজ মাওলানা আখতার হুসাইন ফারুকী প্রমুখ।