আমদানির জমাট বাধাঁ সার সরবরাহ বন্ধের দাবি যমুনা সার কারখানা ঘেরাও অবরোধ

0
245

সরিষাবাড়ী প্রতিনিধি : দীর্ঘদিন উন্মুক্তভাবে পড়ে থাকা নিন্মমানের আমদানি করা জমাটবাঁধা সার সরবরাহ বন্ধের দাবিতে কারখানা ঘেরাও, বিক্ষোভ, অবরোধ কর্মসূচি পালন করেছে পরিবহন শ্রমিক ও ডিলাররা। এতে কারখানার কর্মকর্তা-কর্মচারিরা তাদের আন্দোলনের মুখে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন। রোববার দুপুরে জামালপুরের সরিষাবাড়ী যমুনা সার কারখানা গেটে এ কর্মসূচি পালন করেন আন্দোলনকারীরা।
জানা যায়, চলতি মাসে ডিলারদের বরাদ্দে যমুনার উৎপাদিত ইউরিয়া সারের সাথে আমদানিকৃত ১ টন সার উত্তোলন বাধ্যতামুলক দেয় কর্তৃপক্ষ। দীর্ঘদিনের এ আমদানিকৃত সার খোলা আকাশের নিচে রাখায় রৌদে বৃষ্টিতে সারের বস্তা ছেঁড়া-ফাটা, জমাটবাধাঁ, গলিত ও গুণগতভাবে নিন্মমানে পরিনত হয়েছে। এতে সারের কার্যক্ষমতাও হারিয়েছে। এ সার কৃষকরা না নেয়ায় মোটা অংকের লোকসান গুনে আসছেন ডিলাররা। এর ফলে শনিবার সকাল থেকে কারখানায় আমদানিকৃত নিন্মমানের সার বন্ধের দাবিতে যমুনার উৎপাদিত ইউরিয়া সারসহ উত্তোলন বন্ধ করে দেয় ডিলাররা। এতেও কারখানার কর্তৃপক্ষের টনক নড়েনি। এ নিয়ে পরিবহণ শ্রমিক ও ডিলারদের মধ্যে অসন্তোষ দেখা দেয়। একপর্যায় রোববার সকাল ১১টা থেকে নিন্মমানের আমদানি সার সরবরাহ বন্ধের দাবিতে কারখানার প্রধান গেট ঘেরাও, অবরোধ ও বিক্ষোভ করে পরিবহন শ্রমিক এবং ডিলাররা। পরে দুপুর ২টার দিকে কারখানার ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রদীপ কুমার মজুমদারের আহবানের কারখানার সভা কক্ষে ডিলারদের নিয়ে বৈঠকে বসেন। এ সময় কারখানার জিএম প্রশাসন মঈন উদ্দিন, বিক্রয় কর্মকর্তা ওয়ায়েছুর রহমান ও ডিলার প্রতিনিধি আশরাফুল ইসলাম মানিক, মোজাম্মেল হোসেন মুকুল, মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে আমদানি করা সার বাছাই করে ১ টনের পরিবর্তে ১৫ বস্তা করে যমুনা বরাদ্দের সারের সাথে নেয়ার সিদ্ধান্ত হয়। কারখানা কর্তৃপক্ষের এমন সিদ্ধান্তে আন্দোলনকারীরা তাদের কর্মসূচি প্রত্যাহার করে নেন। সোমবার সকাল থেকে ফের নিয়মিত সার সরবরাহ শুরু করা হবে বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন বৈঠকের প্রতিনিধিরা।